মৌনকুহরের নতুন সব লেখা পেতে নীড়পাতায় ক্লিক করুন।

এখন ঐ একই ঠিকানায় পাবেন
মৌনকুহরের সমস্ত লেখাোখা
নতুন সব লেখাও প্রকাশিত হবে ওখানেই।

সাথে থাকার জন্যে অনেক অনেক ধন্যবাদ!

বৃহস্পতিবার, ৫ জুন, ২০১৪

বেঁচে থাক!

বেঁচে থাক গল্প, বেঁচে থাক গান
বেঁচে থাক ভালোবাসা, মান-অভিমান
বেঁচে থাক শৈশব, দুপুরের ঘুম
বেঁচে থাক মা-বাবার মায়া-মাখা চুম
বেঁচে থাক বকুনি, আদুরে শাসন
বেঁচে থাক এটা-ওটা করাতে বারণ
বেঁচে থাক বড় হওয়া, বেঁচে থাক সব
বন্ধুরা মিলে তোলা সেই কলরব
সেই ইশকুল-ঘর, গণিতের ক্লাস
বেঁচে থাক কোনোমতে টেনেটুনে পাশ
বেঁচে থাক বাবাদের কপট সে রাগ
বেঁচে থাক মায়েদের আঁচল-সোহাগ
মামা-খালা, চাচা-ফুপুকই তোরা-তুই?
আদরে-শাসনে ঘেরা মমতার ভুঁই?
দাদু কই? নানু কই? কই সেই রাত?
রাত-জাগা গল্পেরা? জ্যোৎস্নার চাঁদ?
বেঁচে থাক, বেঁচে থাক, সেই রাত-দিন
কালের গর্ভে যারা হয়েছে বিলীন


সোমবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১২

চক্র চিরন্তন

নজরুল-শরচন্দ্রের কোনো দরকার নাই তো আমার! ক্লাস ফাইভের অঙ্ক পরীক্ষায় সতের পেয়ে ফেল মারেন, তারপর আবার পড়া ফেলেসাহিত্যচর্চা’?! লজ্জা করে না?! বেশরম! বেহায়া! যাহ্!”

খাতাটা ছুড়ে মারলেন বাবা, দশ-বারো হাত দূরে তুলে আনার আর সাহস পেলাম না


বৃহস্পতিবার, ২১ জুন, ২০১২

গুটলু বেত্তান্ত # ০৫

অস্ত্রোপচার একটা হয়েছে বটে, সেটার ব্যথাও পুরোপুরি ভালো হয় নি এখনও, কিন্তু গুটলু আছে মহাসুখে! নিয়ম-নীতির কড়াকড়ি নেইসারাদিন পড়ো পড়ো বলে চাপাচাপি নেইকাজের মধ্যে এখন কাজ কেবল খাওয়া, ঘুম আর বাকি পুরোটা সময় গেম্‌স খেলাঅন্য সময় দিনে আধঘণ্টার বেশি কম্প্যুতে বসবার কথা কল্পনাও করতে পারে না সেকিন্তু এখন! আহা!


সোমবার, ১৪ মে, ২০১২

এক তরফা


লাস্ট বেঞ্চ কর্নার- বাইরে যা তুই, এই মুহূর্তে বাইরে যা!”
--মুস্তাফিজ স্যারকে স্মরণ করলে আমার প্রথমে মনে পড়ে এই বাক্য, এরপর তার হাসিমাখা স্নেহার্দ্র মুখ, তারপর আর সবকিছুএইট, নাইন, টেন-- টানা তিন বছর ক্লাস পেয়েছিলাম স্যারেরকিন্তু হিসেব কষলে দেখি, তাঁর মোট ক্লাসের প্রায় অর্ধেকটাই আমার কেটেছে ক্লাসের বাইরে করিডোরে দাঁড়িয়ে, কানের লতিতে হাত ঝুলিয়ে!


শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১১

গুটলু বেত্তান্ত # ০৪

“পড়াবি?”

বাল্যবন্ধু সুমনের পাল্লায় পড়ে ‘মহাকবি’ বনে যাবার উপক্রম হয়েছিল কিছুদিন আগে। এরপর থেকে টিউশনি নিবার আগে যোগ-বিয়োগ করি অনেক।

“ছাত্র না ছাত্রী?”
“ছাত্রী।”
“কস্মিন কালেও না!”
“মানে? আরে ব্যাটা ক্লাস ওয়ানের ‘শিশু’, লজ্জা পাওয়ার কিছু নাই।”